ইংরেজি ২০২২ নববর্ষ উপলক্ষ্যে মান্যবর হাইকমিশনারের শুভেচ্ছা বাণী

responsive

“ইংরেজি নববর্ষ ২০২২-এর শুভ সূচনালগ্নে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডে বসবাসকারী প্রবাসি ভাই-বোনদের বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডনের পক্ষ থেকে জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও প্রাণঢালা অভিনন্দন। ২০২২ সাল আপনাদের জন্য বয়ে আনুক অনাবিল শান্তি, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ।

বিদায়ী  ২০২১ সাল ছিল বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডনের জন্য একটি অত্যন্ত গৌরবের ও সফল বছর। এবছর বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা কর্তৃক বিশ্বের প্রথম পাঁচটি দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির দেশ হিসেবে অভিহিত হয়েছে। কোভিডের মধ্যেও আমাদের প্রবৃদ্ধি ছিলো ৬.১০ শতাংশের বেশি। এবছর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের মাথাপিছু আয় ২৫০০ মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে গেছে, যা গত ৫০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ রেকর্ড। এছাড়া বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভও ৪৮ বিলিয়ন ছাড়িয়ে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশের এই উন্নয়নে যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডে বসবাসকারি প্রবাসিদের অবদান ছিলো অপরিসীম। তারা বিগত অর্থ বছরে ২ বিলিয়নেরও বেশি মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ রেমিটেন্স বাংলাদেশে প্রেরণ করেছেন। এ জন্য আমি তাদের প্রত্যেকের প্রতি বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডনের পক্ষ থেকে গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

২০২১ সাল বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডনের জন্য ক‚টনৈতিক ও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ছিলো একটি অতন্ত্য সফল বছর। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পর এই প্রথম আমরা ২৮ কুইন্স গেইটের পাশেই ২৭ কুইন্স গেইটে লন্ডন মিশন সম্প্রসারণ করতে পেরেছি যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নভেম্বর মাসে কপ-২৬-এ অংশগ্রহণের জন্য যুক্তরাজ্য সফরের সময় শুভ উদ্ভোধন করেছেন। তিনি এখানে ‘বঙ্গবন্ধু লাউঞ্জ’-এরও শুভ উদ্বোধন করেন। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২৮ কুইন্স গেইটের বাংলাদেশ হাই কমিশন ভবন যা ১৯৭২ সালে জাতির পিতার নেতৃত্বে বিদেশে বাংলাদেশের প্রথম সম্পদ (এসেট) হিসেবে ক্রয় করা হয়েছিলো সেই ঐতিহাসিক ভবনটিকে হ্যারিটেজ হিসেবে সেখানে ইংলিশ ‘ ব্লু হ্যারিটেজ’ প্লাগ উদ্বোধন করেন। 

বিগত বছর যুক্তরাজ্যে মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সফর ছিলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তিনি লন্ডনে অনুষ্ঠিত চতুর্থ বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য কৌশলগত সংলাপ (স্ট্র্যাটেজিক ডায়লগ)-এ তখনকার ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিব ডমেনিক রাব, কপ-২৬-এর প্রেসিডেন্ট অলোক শর্মা ও তখনকার ব্রিটিশ ট্রেড সেক্রেটারি এলিজাবেথ ট্রুস-এর সাথে সফল কূটনৈতিক বৈঠক করেছেন। মাননীয় পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ-বিন-মোমেনও এই স্ট্র্যাটেজিক ডায়লগ-এ অংশ গ্রহণ করেন।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল গত নভেম্বর মাসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কপ-২৬ অত্যন্ত সফল অংশগ্রহণ। বিবিসি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কপ-২৬-এর শীর্ষ পাঁচ নেগোশিয়েটরদের একজন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরাম (সিভিএফ)-এর প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর জলবায়ু নেতৃত্ব ব্রিটিশ যুবরাজ প্রিন্স চার্লস, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবং কপ-২৬-এর প্রেসিডেন্ট আলোক শর্মা কর্তৃক বহুল প্রশংসিত হয়েছে। জলবায়ূ সম্মেলনের সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বরিস জনসন এক কুটনৈতিক বৈঠকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রগতিশীল মূল্যবোধের ভিত্তিতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে আগামী ৫০ বছরের একটি দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক সুদৃঢ় করার ব্যাপারে আশাবাদ পুন:ব্যক্ত করেছেন। আমরা আশা করছি, ২০২২ সাল কূটনৈতিকভাবে যুক্তরাজ্যের সাথে আমাদের জন্য অত্যন্ত সফল একটি বছর হবে এবং নতুন বছর আমাদের প্রবাসি ব্রিটিশ-বাংলাদেশি এবং আইরিশ-বাংলাদেশি ভাই-বোনদের জন্য বয়ে আনবে অনাবিল আনন্দ, সমৃদ্ধি ও সাফল্য।

আসুন আমরা সবাই প্রত্যয় নেই যে ২০২২ সালে কভিড থাকা সত্বেও আমরা বাংলাদেশি হিসেবে এবং বাংলাদেশি-ব্রিটিশ কমিউনিটি হিসেবে মাথা উঁচু করে এগিয়ে যাব। আবারও বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডনের পক্ষ থেকে সবাইকে ইংরেজি ২০২২ সালের শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাই। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন, কভিড থেকে সুরক্ষিত থাকুন।

জয় বাংলা, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”

responsive

মন্তব্যসমূহ (০)


ব্রেকিং নিউজ

লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন